কোমর ব্যথা, হাঁটু ব্যথা, হাত-পা ব্যথা ও পিঠে ব্যথা দূর করুন

প্রিয় পাঠক : কমবেশি প্রায় সকল লোকই শরীর  ব্যথা,কোমর ব্যথায়  ভোগেন।শরীরের বিভিন্ন অঙ্গপ্রত্যঙ্গে সমস্যা প্রাথমিক অবস্থায় ব্যথার মাধ্যমেই প্রকাশ প্রায়।ঘাড় থেকে ব্যথা ধীরে ধীরে কাঁধ, বাহু ,হাত-পা কোমরে ব্যথা বিস্তৃত হতে থাকে এবং গোটা শরীর অবশ অবশ ভাব হয়।আমাদের নিয়মিত আয়োজন টিপস্ এন্ড ট্রিকস এর আজকের পর্বে আমরা আলোচনা করব কি কারণে শরীরের বিভিন্ন জায়গা যেমন,কোমর, হাঁটু, হাত-পা ও পিঠে ব্যথা হয় এবং এই ব্যথা দুর করতে ঘরোয়া ভেষজ উপাদান ব্যবহার পন্ধতি।

শরীরের বিভিন্ন অঙ্গপ্রত্যঙ্গে ব্যথা অনুভূত হয়ে থাকে।তবে প্রায়ই আমরা এই সংকেত এড়িয়ে যাই।কখনো কখনো নিজেকে সন্তুষ্ট রাখি সবকিছু ভালো আছে এই বলে। এই সব ব্যথা দূর করতে বিভিন্ন মলম ব্যবহার করেও কোনো কাজ হচ্ছে না।ভাবছেন তো এখন কি করবেন? কোন ওধুধেই বা এই রোগ গুলো সারবে? আসুন তবে জেনে নেয়া যাক এর সমাধান।

ব্যথা দূর করার ঘরোয়া উপায় জেনে নিনঃ-

মাত্র ৫ মিনিটে ভয়ষ্কর কোমর ব্যথা,হাঁটু ব্যথা, হাত-পা ও পিঠে ব্যথা সহ যেকোনো ব্যথাই হোক না কেন, তা গোড়া থেকে দূর করবে এই ঘরোয়া উপায়টি।আপনাদের শরীর থেকে ব্যথা দূর করা সবচেয়ে কার্যকরী প্রাকৃতিক একটি উপায় বলা হবে। ব্যথা দূর করার এই উপায়টি কয়েকশো বছর ধরে আয়ুর্বেদ ইউনানশাস্ত্রে খুবই জনপ্রিয়তা পেয়েছে।

এই প্রক্রিয়াটি তৈরি করতে কোনো ধরণে অর্থ ব্যয় করতে হবে না।সেটা আপনার পুরো শরীর, হাত,পা,পিঠ, কোমর সহ শরীরের যেকোনো জয়েন্টের ব্যথাই মুহূতেই মধ্যে নির্মূল করে দিবে।

 

এবার জেনে নিই কোন প্রক্রিয়ার আমরা এই ব্যথার হাত থেকে মুক্তি পেতে পারি সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক উপায়ে।সবার প্রথমে আমাদের যে উপাদানটি প্রয়োজন হবে,সেটি হচ্ছে আকুন্দ পাতা।

এটি অঞ্চল ভেদে বিভিন্ন নামে পরিচিত।দুনিয়ার সবচেয়ে পুরাতন ভেষজ উপাদানের মধ্যে এই আকুন্দ পাতা ব্যবহার হতো শরীরের ব্যথা দূর করার জন্য।উল্লেখ, এই পাতা নিয়ে আমেরিকায় মেডিক্যাল সায়েন্টিস্টরা দীর্ঘ গবেষণা করেছেন।

গবেষণা থেকে পাওয়া ফলাফল থেকে জানা যায়,পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ভেষজ ঔষধি গাছ বা পাতাগুলোর মাঝে এই পাতাটি রয়েছে।

তাই বলা যায়, এই পাতা দিয়ে ব্যথা নাস করা একটা পরীক্ষিক কার্যকারী এবং নিরাপদ তথা কোনো প্রকার পাশ্বপক্রিয়া ছাড়াই।আর এই কারণেই শরীরের ব্যবহার করার জন্য সর্বপ্রথম আপনাদেরকে তৈরি করে নিতে হবে একটি মলম।এই মিশ্রণটি তৈরি করতে সর্বপ্রথম অাপনাকে নিতে হবে সতেজ অ্যালোভেরা পাতা।

স্বাস্থ্য ও সৌন্দর্য সচেতন প্রত্যেকটি মানুষের বাড়িতে অ্যালোভেরা গাছ পাওয়া যায়।গাছের একটি পাতা নিয়ে আনুমানিক এক চামচ পরিমাণ অ্যালোভেরা জেল নিয়ে একটি পাত্রে রাখতে হবে।সবচেয়ে ভালো হয় আপনি পাতা কেটে তার ভেরত হতে জেল বের করে নেন।যদি আপনার বাসার অ্যালোভেরা গাছ না থাকে তাহলে বাজারে পাওয়া অ্যালোভেরা জেল কিনে ব্যবহার করতে পারেন।

কোমর ব্যথা দুর করার ঘরোয়া টিপস : 

অ্যালোভেরা জেল বের করার পর তা একটি পাত্রে রেখে চামচ দিয়ে ভালো ভাবে পিষে নিন। এবার আপনাকে আরেকটি উপাদান নিতে হবে সেটি হলো হলুদের পাউডার বা গুড়া।জয়েন্টের ব্যথা দূর করার জন্য হলদে পাউডার খুবই উপকারী।এটি দূত যেকোনো ব্যথা দুর করার জন্য হলদে পাউডার সবচেয়ে ভালো একটি উপাদান।

সামান্য পরিমাণ হলদে পাউডার নিন সাথে এর মাঝে সরিষাতেল মিশিয়ে নিন।বাহ্যিক ব্যবহারের জন্য সেরা তেল হলো সরিষাতেল।খেয়াল রাখতে হবে যে এই সবগুলো উপাদান একসাথে ভালোভাবে মিক্স করে নিন।এগুলো খুবই পাতলা বা ঘন না হয়ে যায়।এটি আপনি মিড়িয়াম অবস্থায় রাখুন।

যেন দেখতে এটিকে এক ধরণের ক্রীমের মত দেখতে হয়। দুই থেকে তিন মিনিট ধরে ভালো করে একসাথে মিশিয়ে নিন।একটু বেশি সময় নিবেন যাতে মিশ্রণটি খুবই ভালোভাবে মিশে যায়।

 

ব্যবহার করবেন যেভাবেঃ-

 

শুরুতেই আমরা বলেছিলাম,আকুন্দ পাতার উপকারিতা সম্পর্কে।আপনি কয়েকটি আকুন্দ পাতা ছিড়ে নিন এবং সে পাতাগুলোতে হারকা সরিষাতেল মাখিয়ে কড়াইয়ের উপর ১ মিনিটে রেখে হালকা গরম করে নিন।

মনে রাখবেন পাতা যাতে না পুড়ে যায়। এটি গরম করার ফলে এর থেকে এক ধরনে খুবই প্রয়োজনী উপকরন বের হয় যা আমাদের শরীরে হান্ডি,হাত-পা,কোমর,পিঠ ও জয়েন্টের ব্যথাকে মূল থেকে নির্মূল করে দেয়।

এবার পূর্বে তৈরি করে রাখা অ্যালোভেরা মিশ্রণটি আপনার ব্যথা করার জায়গায় সুন্দরভাবে লাগিয়ে নিন।

এটি আক্রান্ত স্থানে ভালোভাবে মালিশ করে নিয়ে সেই জায়গায় হালকা গরম করে রাখা আকুন্দ পাতাটি সুন্দর করে লাগিয়ে নিন।এটি কিছুক্ষণ হাত দিয়ে চাপ দিয়ে রাখুন তার সুতা দিয়ে পাতাটি বেধে রাখুন যাতে পাতাটি না পড়ে যায়।এটি ১০/১৫ মিনিট রেখে খুলে ফেলে দিন এবং নিয়মিত ব্যবহার করুন।

উল্লেখ, শরীরের ব্যথা জয়েন্টের ব্যথা বা যেকোনো ব্যথা দূর করার জন্য আকুন্দ পাতা অনেক উপকারী ।তবে মনের রাখবেন আকুন্দ পাতার মাধ্যমে শুধু উপকার হয তা কিন্তু নয়, অরেক ক্ষেত্রেই এটি শরীরের জন্য ক্ষতির হতে পারে যদিত াামরা এই আকুন্দ পাতার সঠিক ব্যবহার বিধি না জানি।

ভালোভাবে জেনে এটি ব্যবহার করবেন।নিজেদের চোখের দিকে খেয়াল রেখে এই আকুন্দ পাতা ব্যবহার করতে হবে।এই পাতা গাছ হতে ছেড়ার সময় এই বোটা হতে একধরণে সাদা তরল কস বের হয়।যা আমাদের চোখ ও ত্বকের জন্য ক্ষতিকর।তাই সাবধানে এই কাজ করবেন।

 

এটি প্রথমবার ব্যবহারে হলে এমন অনুভুতি পাবেন যা অন্যসময় ওষুধ খেয়ে এত আরাম পান নাই।কারণ আপনি যে ভেষজ ব্যবহার করলেন যা একেবারে ইউনান শান্ত্র ও আয়ুর্বেদিক শান্ত্রানুয়ারী প্রমাণিত উপাদান।যায় ফলে কোনো ধরনে ক্ষতি ও টাকা খরচ ছাড়াই আপনার শরীরে বিভিন্ন ব্যথা দূর করতে পারবেন।তাই শরীরের   করতে এই পদ্ধতি অনুসরণ করুন। ধন্যবাদ
Scroll to Top