দ্রুত সময়ে ত্বকের ব্রণের দাগ দূর করতে হলুদের অত্যন্ত কার্যকরী কিছু ফেসমাস্ক

আমাদের সুন্দর, কোমল এবং মসৃণ ত্বকের অন্যতম প্রধান অন্তরায় হচ্ছে ব্রণ এবং ব্রণের দাগ।

ত্বক থেকে ব্রণের দাগ দূর করতে আমরা অনেকেই বিভিন্ন ধরনের কেমিক্যালযুক্ত প্রসাধনী ব্যবহার করছি। তবে এসব কেমিক্যালযুক্ত প্রসাধনী ব্যবহারে স্বল্প সময়ে লাভবান হলেও দীর্ঘ স্থায়ী ভাবে আমরা ত্বকের ক্ষতিসাধন করে বসছি। তাই ব্রণ এবং ব্রণের দাগ দূর করতে প্রয়োজন প্রাকৃতিক কিছু উপাদানের।

ব্রণের দাগ সম্পূর্ণরূপে দূর করতে ঠিক তেমনি একটি প্রাকৃতিক উপাদান হচ্ছে হলুদ। হলুদের অনন্য উপকারিতার কারণেই বহুকাল ধরে রূপচর্চায় হলুদ ব্যবহৃত হয়ে আসছে। ব্রণের দাগ সহ ত্বকের বিভিন্ন ধরনের দাগ দূর করতে হলুদে বিদ্যমান উপাদান অত্যন্ত কার্যকরী।

তাই দ্রুত সময়ে ব্রণের দাগ দূর করতে হলুদের অত্যন্ত কার্যকরী কিছু ফেস মাস্ক নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে বন্ধুরা। তাহলে চলুন দেখে নেয়া যাক দ্রুত সময়ে ব্রণের দাগ দূর করতে হলুদের অত্যন্ত কার্যকরী কিছু ফেস মাস্ক।

দ্রুত সময়ে ত্বকের ব্রণের দাগ দূর করতে হলুদের অত্যন্ত কার্যকরী ফেস মাস্ক সমূহঃ

হলুদ দুধ এবং মধুর ফেস মাস্কঃ

  • একটি পরিষ্কার পাত্রে আধা চা চামচ হলুদের গুঁড়া 1 চা চামচ অপরিশোধিত মধু এবং ১ চা চামচ কাঁচা দুধ নিন।
  • উপাদানসমূহ ভালোভাবে মিশিয়ে নিয়ে তৈরি করে নিন  ব্রণ দূর করতে হলুদের এই কার্যকারী ফেস মাস্ক টি।

  • প্রথমে কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।
  • তারপর ফেস মাস্ক টি সম্পূর্ণ মুখে তুলা অথবা ব্রাশের সাহায্যে মাসাজ করে লাগিয়ে নিন।
  • মিশ্রণটি সম্পূর্ণ শুকানোর জন্য 15 থেকে 20 মিনিট অপেক্ষা করুন।
  • তারপর পরিষ্কার পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।

উপকারিতাঃ

  • হলুদের অ্যান্টিসেপ্টিক এবং এন্টি ব্যাকটেরিয়াল উপাদান ত্বকের ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়া দূর করে।
  • ব্রণ ওঠা বন্ধ করে।
  • ব্রণের দাগ সম্পূর্ণরূপে দূর করে।
  • মধু ত্বক কে কোমল এবং মসৃণ রাখতে সাহায্য করে।
  • ত্বকের মৃত কোষ সমূহ দূর করতে সাহায্য করে।

হলুদ বেসন এবং গোলাপ জলের ফেস মাস্কঃ

  • 1 টেবিল চামচ হলুদের গুঁড়া, 2 টেবিল চামচ বেসন এবং পরিমাণমতো গোলাপজল ভালোভাবে মিশিয়ে নিয়ে তৈরি করে নিন হলুদের অত্যন্ত কার্যকরী ফেস মাস্ক টি।
  • পরিষ্কার মুখে তোলা অথবা ব্রাশের সাহায্যে মিশ্রণ টি সম্পূর্ণ লাগিয়ে নিন।

  • তিন থেকে পাঁচ মিনিট ম্যাসাজ করুন।
  • 15 থেকে 20 মিনিট শুকানোর জন্য সময় দিয়ে পরিষ্কার পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।

  উপকারিতাঃ

  • তৈলাক্ত ত্বকের অতিরিক্ত তেল চিটচিটে ভাব দূর করবে।
  • ত্বকের স্বাভাবিক আর্দ্রতা বজায় রাখবে।
  • ব্রণের উপদ্রব কমাবে।

  • ত্বকে ব্রণের দাগ সহ বিভিন্ন ধরনের দাগ সম্পূর্ণরূপে দূর করবে।
  • ত্বক কে গভীর থেকে উজ্জ্বল ফর্সা এবং মসৃণ করে তোলবে।

হলুদ, মধু এবং লেবুর রসঃ

  • আধা চা চামচ হলুদের গুঁড়া, আধা চা চামচ লেবুর রস এবং এক টেবিল চামচ অপরিশোধিত মধু একটি পরিষ্কার পাত্রে নিয়ে ভালোভাবে গুলিয়ে তৈরি করে নিন ব্রণ দূর করতে  হলুদের অত্যন্ত কার্যকরী ফেস মাস্ক টি।
  • পরিষ্কার মুখে মাস্ক টি ভালভাবে মাসাজ করে তোলা অথবা মুখের ব্রাশের সাহায্যে লাগিয়ে নিন।
  • তিন থেকে পাঁচ মিনিটে ভালভাবে মাসাজ করে 15 থেকে 20 মিনিট শুকানোর জন্য সময় দিন।
  • শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।

উপকারিতাঃ

  • লেবুর রস ত্বকের কালো দাগ এবং ব্রণের দাগ দূর করতে অত্যন্ত কার্যকরী।
  • মধু ত্বকের ব্রণ দূর করতে সাহায্য করে।
  • ত্বকের স্বাভাবিক আর্দ্রতা বজায় রাখতে সাহায্য করে।

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ

অতিরিক্ত সেনসিটিভ ত্বকে এই ফেইস মাস্ক ব্যবহার করবেন না।

হলুদ, টকদই টমেটোর ফেস মাস্কঃ

  • 1 চা-চামচ হলুদের গুঁড়া, 1 টেবিল চামচ টক দই এবং অর্ধেক পাকা টমেটোর রস ভালোভাবে মিশিয়ে নিয়ে  তৈরি করে নিন হলুদের ফেস মাস্ক।

  • পরিষ্কার ত্বকে ভালোভাবে স্ক্রাব করে লাগিয়ে নিয়ে 15 থেকে 20 মিনিট অপেক্ষা করুন।
  • মাস্ক টি  শুকিয়ে গেলে ভালোভাবে ঠান্ডা জলে মুখ ধুয়ে নিন।

উপকারিতাঃ

  • রোদে পোড়া দাগ সম্পূর্ণরূপে দূর করবে।
  • ব্রণের দাগ দূর করবে।
  • ত্বক কে গভীর থেকে আকর্ষণীয় এবং মসৃণ করবে।
  • ত্বকের  মৃত কোষ সমূহ দূর করবে।
  • ত্বক কে সতেজ এবং কেমল রাখবে।

হলুদ, বিটরুট এবং এলোভেরা জেলঃ

  • 1 চা-চামচ হলুদের গুঁড়া 2 চা চামচ লেবুর রস এবং দুই চা-চামচ অ্যালোভেরার জেল পরিষ্কার পাত্রে নিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে নিয়ে তৈরি করে নিন হলুদের ফেস মাস্ক।
  • ত্বকে ব্যবহারের জন্য উপরে উল্লেখিত ব্যবহার পদ্ধতি অনুসরণ করুন।

  উপকারিতাঃ

  • ত্বককে গভীর থেকে উজ্জ্বল ফর্সা এবং আকর্ষণীয় করে তুলবে।
  • ত্বকের কালো দাগ, বলিরেখা সহ বিভিন্ন ধরনের দাগ দূর করবে।
  • ব্রণের দাগ দূর সময়ে দূর করবে।
  • ত্বকে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি করে কোষ সমূহ সতেজ রাখবে।
  • ত্বকের ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়া সমূহ দূর করে ত্বককে দূষণমুক্ত রাখবে।
  • ত্বকের স্বাভাবিক আর্দ্রতা বজায় রাখবে।

হলুদ, অ্যাভোকাডো এবং টক দইঃ

  • 1 চা-চামচ হলুদের গুঁড়া 2 টেবিল চামচ অ্যাভোকাডো ফলের পেস্ট এবং 1 টেবিল চামচ টক দই ভালোভাবে মিশিয়ে নিয়ে তৈরি করে নিন হলুদের ফেস মাস্ক টি।
  • পরিষ্কার মুখে ভালোভাবে স্ক্রাব করে লাগিয়ে নিন।

  • সম্পূর্ণ শুকানোর জন্য 20 থেকে 25 মিনিট সময় দিয়ে কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।

উপকারিতাঃ

  • অ্যাভকোডার ভিটামিন-ই, এবং ফ্যাটি অ্যাসিড ত্বক হাইড্রেট করে।
  • অ্যান্টি-ইনফ্লামেটরি এবং অ্যান্টি-এজিং উপাদান ত্বকের তারুণ্য ধরে রাখে।
  • দ্রুত সময়ে ত্বক থেকে ব্রণের দাগ দূর করে।

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ

  • হলুদের ফেইস মাস্কে বিদ্যমান বিভিন্ন ধরনের উপাদান আপনার ত্বকের জন্য এলার্জিক হলে তা ব্যবহার থেকে সম্পূর্ণ বিরত থাকুন।
  • ফেস মাস্ক মুখে লাগিয়ে রোদে, গরম স্থানে এবং ধুলাবালিতে যাবেন না।
  • ত্বকে ফেস মাক্স স্ক্রাব করার সময় অতিরিক্ত প্রেসার দিবেন না।

  দ্রুত সময়ে ব্রণ দূর করতে হলুদের ফেস মাস্ক সপ্তাহে অন্তত দুবার ব্যবহার করুন।

বিভিন্ন গবেষক এবং বিউটিশিয়ানরা ত্বকে ব্রণের দাগ সহ বিভিন্ন ধরনের দাগ দূর করতে হলুদ ব্যবহারের পরামর্শ দিয়ে আসছেন। হলুদের এন্টিসেপটিক ইনফ্লামেটরি উপাদান ত্বকের বিভিন্ন। ইনফেকশন দূর করে আমাদের ত্বককে সুস্থ রাখে।

এটি সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক হওয়াই যে কেউ ঘরে বসে হলুদের ফেস মাস্ক  ব্যবহার করতে পারেন। তাই দ্রুত ব্রণের দাগ দূর করতে ঘরে বসেই সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক উপায়ে  আমাদের নির্দেশিত পন্থা অনুসরণ করে হলুদের ফেস মাস্ক ব্যবহার করুন। দাগ মুক্ত,  উজ্জ্বল ও কোমল এবং ফর্সা ও আকর্ষণীয় ত্বকের অধিকারী হন।

  ধন্যবাদ