নারীদের চুল পড়া রোধে ঘরোয়া উপায়, সহজেই আপনার চুল পড়া বন্ধ হবে

প্রিয় পাঠক,চুল নারীদের সৌন্দর্য আর ছেলেদেরও মহাগুরুত্বপূর্ণ মাথায় চুল। বর্তমানে চুল পড়া সমস্যা নিয়ে চিন্তিত না এমন মানুষ খুজে পাওয়া কষ্টকর। আমাদের অনেকেই চুল পড়ে বা ঝড়ে যাচ্ছে। আমাদের নিয়মিত টিপস্ এন্ড ট্রিকস আয়োজনের আজকের পর্বে আমরা আলোচনা করবো কিভাবে সহজেই মেয়েদের চুল পড়া বন্ধ করা যায়।

মেয়েদের মাথার চুল একটি সৌন্দর্য।মেয়েরা সাধারণ গন রেশমি ও লম্বা চুল পছন্দ করে।তাদের চুল লম্বা ও গন করতে নানা রকম ব্যবস্থা গ্রহণ করে থাকে।প্রতিদিন ৫০ থেকে ১০০ টি চুল পড়লে সেটি স্বাভাবিক বলে ধরা হয়।কিন্তু এটি বৃদ্ধি পেলে সেটিকে চুল পড়া সমস্যা হিসেবে ধরা হয়।মূলত বালিশের কভারে বা গোসলের তোয়াতে যখন ঝড়ে পড়া চুলের আধিক্য দেখা যায় তখন চুলের পরিচর্যার মনোযোগী হতে হবে।

 

একটি একটি সময় এসে এইসব লম্বা চুল বিনা কারণেই ঝরে পড়ে যায়।এতে নারীরা মানসিক ভাবে খুবই দুশ্চিন্তা করে থাকে।

চুল পড়া বন্ধ করতে অনেকেই অনেক কিছু ব্যবহার করেও পাচ্ছে না সঠিক সমাধান। চুল পড়া একবার শুরু হলে যেন বন্ধ হওয়ার কোনো লক্ষণ পাওয়া যায় না।চুল পাতলা বা পড়া শুরু করলে একটি নারীর যেমন সৌন্দর্য কমে তেমনি শারীরিক সমস্যার লক্ষণ বুঝা যায়।তবে চুল পড়া বন্ধ করার জন্য বাজার হতে নিম্নমানের কেমিক্যালযুক্ত ওষুধ চুল পড়া বন্ধ করার চেয়ে ক্ষতি করে থাকে বেশি।তাই আজ আমরা আলোচনা করবো কিছু ঘরোয়া পদ্ধতিতে কিভাবে আপনি সহজেই আপনার চুল পড়া বন্ধ করবেন।

 

কেন চুল পড়ে যায় আসুন জেনে নিইঃ-

অধিক চুল পড়ার পেছনে অনেকগুলো কারণ বিদ্যমান থাকে।এবার জেনে নেই কারণ গুলো…..
চুল পড়ার অন্যতম কারণ বংশগত,একটি নিদিষ্ট সময়ের পর নারী হোক বা পুরুষ তাদের চুল পড়ার লক্ষণ দেখা যায় এবং তার বংশের অধিকাংশ লোকেই ক্রমান্বয়ে এটি দেখা যায়।এটিকেই বংশগত কারণ বলা হয়।

নারীদের চুল পড়ার অন্যতম কারণ হরমোন পরিবর্তন। সাধারণ,নারীদের গর্ভাবস্থায়, প্রস্তাব ও অনিয়মিত মাসিক বা অতিরিক্ত জন্মনিয়ন্ত্রণ বড়ি খেলে নারীদের চুল পড়া প্রকট ভাবে দেখা দেয়।অনেকসময় গর্ভকালীন সময়ের নারীদের শরীরের হরমোনের পরিবর্তন হওয়ার সন্তান জন্ম নেওয়ার পর অধিক সংখ্যক চুল উঠতে শুরু করে।এটি হলে বিশেষজ্ঞ কোনো ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়াই ভালো।

অনেকসময় অসুস্থজনিত কারণে চুল পড়ে যায়,কিন্তু শরীর সুস্থ হলে চুল পড়া সমস্যা দূর হয়ে যায়।

মাথায় ত্বক সংক্রমিত হলে চুল ঝরে পড়ে যায়।

মরণব্যাধি ক্যানসার,রক্তচাপ সহ বিভিন্ন অসুখের কারণ বা অতিরিক্ত মানসিক চাপের কারণে দীর্ঘ দিন ওষুধ গ্রহণ করলে চুল পড়ার সম্ভবনা থাকে।

 

চুল পড়ার লক্ষণ……

চুল পড়ার বৃদ্ধি পেলে কয়েকটি উপসর্গ আমাদের সামনে চোখে পড়ে।এই লক্ষণ গুলো সামনে এলেই বুঝবেন আপনার চুল পড়ার সমস্যা দেখা দিয়েছে।

মাথায় সামনের অংশে ও উপরের অংশে ধীরে ধীরে চুল কমতে শুরু করবে এবং চুল আঁচড়ানোর সময় মাথায় চিরুনিতে আঘাত অনুভূতি হবে।চুল পড়া আগের তুলনায় আরো পরিমাণ বৃদ্ধি পাবে।মাথায় চুলের পাশাপাশি ভুরুর চুল বা চোখের পাতার চুলে সর্বত্রই চুল পড়া সমস্যা দেখা দিবে।মাথায় ত্বকে অধিক শুষ্কতা এবং খুশকির সমস্যা বেড়ে যাবে।

উপরোক্ত সমস্যা গুলো অধিক মাত্রায় দেখা দিলে চুলের যত্ন অধিক বেশি নেওয়া প্রয়োজন। ঘরোয়া উপায় অবলম্বনের পাশাপাশি বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে।

 

আসুন এবার জেনে কোনো কেমিক্যাল ব্যবহার না করেই ঘরোয়া পদ্ধতিতে চুল পড়া বন্ধ করার উপায়ঃ

১. নারিকেলের দুধ দিয়ে চুলে যত্নঃ- চুলের যত্নের স্বাভাবিক ভাবে সবাই ব্যবহার করে নারিকেল তেল।নারিকেলের সাথে দুধও কিন্তু অধিক উপকারী। চুল পড়া বন্ধ করার পাশাপাশি এটি চুল দ্রুত লম্বা করতেও সহয়তা করে।বিশেষ করে এটিতে কোনো কেমিক্যাল না থাকায় নিশ্চিতেই ব্যবহার করা যায়।চুলের ভিটামিনের ঘাটতি পূরন করে রক্ত সঞ্চালন অনেক গুণে বাড়ায় নারিকেল দুধ।

চুলে নারিকেল দুধ ব্যবহার করার জন্য আমাদের লাগবে একটি নারিকেল ও শাওয়ার ক্যাপ।প্রথমে নারিকেলটি কুরিয়ে নিন।এরপর পরিস্কার সুতি কাপড়ের রেখে আস্তে আস্তে চেপে নারিকেলের রস বা দুধ বের করে নিতে হবে।এরপর বের করা দুধ টুকু ১৫ মিনিট হালকা কুসুম গরম করে নিতে হবে।মাথায় ত্বক ও চুলে ভালোভাবে ম্যাসাজ করে নিন।এরপর শাওয়ার ক্যাপ লাগিয়ে রাখুন।তারপর ঘন্টা খানিক অপেক্ষা করে আপনার চুলের ব্যবহার করা শ্যাম্পুর দিয়ে চুল ধুয়ে নিন।

নিমপাতার ব্যবহারঃ চুল ও ত্বকের যত্নের নিমপাতার ব্যবহার অনেক আগের থেকেই।১০/১২ টি নিমপাতা ভেটে নারিকেল তেলের সাথে মিশিয়ে চুলে ব্যবহার করুন।তারপর আধাঘন্টা পর ধুয়ে ফেলুন।এটি নিয়মিত ব্যবহারের ফলে চুল ঝড়ে পড়া রোধ করে সাথে চুল লম্বা ও ত্বকের সমস্যা দূর করে।

মেথির ব্যবহারঃ- চুল পড়া রোধ করতে মেথির ব্যবহার প্রচলিত। লেবুর রসের সাথে মেথি ব্যবহার করলে চুল পড়া বন্ধ ও চুল লম্বা হতে সহয়তা করে।

এছাড়াও অ্যালোভেরা জেল,মেহেদী ভাটা,পেঁয়াজের রস চুল ঝড়ে পড়া রোধে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে।

তাই পাঠক নারীদের চুল ঝড়ে পড়া রোধে উপরোক্ত ঘরোয়া উপায় ব্যবহার করে সহজেই আপনাদের চুল পড়া রোধ করতে পারবেন।আসুন আমরা চুলের যত্ন নেই নারীর সৌন্দর্য ফুটিয়ে তুলি।ধন্যবাদ।

 

দ্রুত সময়ে ত্বকের ব্রণের দাগ দূর করতে হলুদের অত্যন্ত কার্যকরী কিছু ফেসমাস্ক